কারীন জিন: আপনার নিত্যসঙ্গী এই ভয়ানক শয়তান সম্পর্কে আপনি কতটা সচেতন? কুরআনুল করামেও আল্লাহ তায়ালা এই শয়তাননের কথা উল্লেখ করেছেন

লিখেছেন লিখেছেন কুয়েত থেকে ২০ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:৩০:৫৪ রাত

কারীন জিন: আপনার নিত্যসঙ্গী এ ভয়ানক শয়তান সম্পর্কে আপনি কতটা সচেতন? কারীন ((قرين)) আরবি শব্দ। এর অর্থ হল: সঙ্গী, সাথী ও সহচর।

কুরআন ও সহিহ সুন্নাহ দ্বারা প্রমাণিত যে, প্রতিটি মানুষের নিকট একজন করে জিন-শয়তান নিযুক্ত করা আছে। তার কাজ মানুষকে পথভ্রষ্ট করা, অন্যায়, অশ্লীল ও কুকর্মে প্ররোচিত করা এবং ভালো কাজে নিরুৎসাহিত করা বা বাধা দেয়া। একেই কারীন বা সহচর শয়তান বলা হয়।

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর নিকটও এই জিন-শয়তান ছিল কিন্তু সে ইসলাম কবুল করেছিলো। যার কারণে সে নবীয়ে করিম সাল্লাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে কুমন্ত্রণা দিতে সক্ষম হত না। যেমন:

▪ হাদিসে বর্ণিত হয়েছে, আব্দুল্লাহ ইবনে মাসঊদ রা. হতে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:

ما مِنكُم مِن أحَدٍ، إلَّا وقدْ وُكِّلَ به قَرِينُهُ مِنَ الجِنِّ قالوا: وإيَّاكَ؟ يا رَسولَ اللهِ، قالَ: وإيَّايَ، إلَّا أنَّ اللَّهَ أعانَنِي عليه فأسْلَمَ، فلا يَأْمُرُنِي إلَّا بخَيْرٍ. غَيْرَ أنَّ في حَديثِ سُفْيانَ وقدْ وُكِّلَ به قَرِينُهُ مِنَ الجِنِّ وقَرِينُهُ مِنَ المَلائِكَةِ.

তোমাদের মধ্যে এমন কেউ নেই যার সাথে তার সহচর জিন (শয়তান) নিযুক্ত করে দেয়া হয়নি।

সাহাবীগণ জিজ্ঞেস করলেন: আপনার সাথেও কি হে আল্লাহর রাসূল?

তিনি বললেন: আমার সাথেও তবে আল্লাহ তাআলা তার ব্যাপারে আমাকে সাহায্য করেছেন। ফলে সে ইসলাম গ্রহণ করেছে ( বা আমার অনুগত হয়ে গেছে)। ফলে সে আমাকে কেবল ভাল কাজেরই পরামর্শ দেয়।

সুফিয়ানের বর্ণনায় আছে:

وقد وكِّل به قرينُه من الجنِّ وقرينُه من الملائكة

(তোমাদের মধ্যে এমন কেউ নেই যার সাথে) তার সহচর জিন (শয়তান) এবং সহচর ফেরেশতা নিযুক্ত করে দেয়া হয় নি। [সহিহ মুসলিম, হা/২৮২৪]

▪ কুরআনেও আল্লাহ তাআলা কিয়ামতের দিন মানুষের সার্বক্ষণিক সঙ্গী এই শয়তান এবং মানুষের মাঝে বাক-বিতণ্ডার কথা উল্লেখ করেছেন।

قَالَ قَرِينُهُ رَبَّنَا مَا أَطْغَيْتُهُ وَلَكِنْ كَانَ فِي ضَلَالٍ بَعِيدٍ * قَالَ لَا تَخْتَصِمُوا لَدَيَّ وَقَدْ قَدَّمْتُ إِلَيْكُمْ بِالْوَعِيدِ

তার কারীন বা সঙ্গী শয়তান বলবে: হে আমাদের পালনকর্তা, আমি তাকে অবাধ্যতায় লিপ্ত করিনি। বস্তুত: সে নিজেই ছিল সুদূর পথভ্রান্তিতে লিপ্ত। আল্লাহ বলবেন: আমার সামনে বাকবিতণ্ডা করো না। আমি তো পূর্বেই তোমাদেরকে আজাব দ্বারা ভয় প্রদর্শন করেছিলাম। (সূরা ক্বাফ: ২৭ ও ২৮)

ইবনে আব্বাস (রাHappy এর ব্যাখ্যায় বলেন:

هو الشيطان الذي وُكِّل به এটাই হল, নিয়োগ কৃত শয়তান।

ইকরিমা, মুজাহিদ প্রমুখ তাফসীর কারকগণও একই কথা বলেছেন।

▪ আবদুল্লাহ ইবনে উমর (রাHappy থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন:

إِذَا كَانَ أَحَدُكُمْ يُصَلِّي فَلاَ يَدَعْ أَحَدًا يَمُرُّ بَيْنَ يَدَيْهِ فَإِنْ أَبَى فَلْيُقَاتِلْهُ فَإِنَّ مَعَهُ الْقَرِينَ

তোমাদের কেউ যখন সালাত পড়ে, তখন সে যেন তার সামনে দিয়ে কাউকে অতিক্রম করতে না দেয়। যদি সে অস্বীকার করে (বাধা মানতে না চায়) তবে সে যেন তার সাথে লড়াই করে। কেননা তার সাথে তার সঙ্গী শয়তান রয়েছে। (সহিহ মুসলিম, হা/৫০৬)

হে আল্লাহ আমাদেরকে কারিন জিনরে ক্ষতি থেকে হেফাজত করুন আমিন।

বিষয়: বিবিধ

১৫৫৪ বার পঠিত, ৪ টি মন্তব্য


 

পাঠকের মন্তব্য:

386756
২৩ অক্টোবর ২০১৯ সকাল ০৮:০২
টাংসু ফকীর লিখেছেন : অনেক ধন্যবাদ
০২ নভেম্বর ২০১৯ দুপুর ০৩:২৪
318432
কুয়েত থেকে লিখেছেন : আপনাকে ও অসংখ্য ধন্যবাদ লেখাটি পড়ার জন্য এবং মন্তব্য করা জন্য
386768
১০ নভেম্বর ২০১৯ দুপুর ১২:৫১
মনসুর লিখেছেন : সুন্দর লিখেছেন, শুভেচ্ছান্তে ধন্যবাদ। মহান আল্লাহ আমাদর সবাইকে হেদায়েত দিয়ে দুনিয়া ও আখেরাতে নেক কামিয়াবী দান করুন, আমীন।
০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ রাত ১১:৪৪
318458
কুয়েত থেকে লিখেছেন : আপনাকে ও অসংখ্য ধন্যবাদ লেখাটি পড়ার জন্য এবং মন্তব্য করা জন্য। অনেক দিন পরেই ব্লগে আসলাম দোয়া করবেন

মন্তব্য করতে লগইন করুন




Upload Image

Upload File