শিবির সম্পর্কে আপনার যা অজানা...

লিখেছেন লিখেছেন বাংলার দামাল সন্তান ০৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ০৭:৫৫:২৯ সন্ধ্যা

শিবির তো সেই সংগঠন যার কর্মীদের নৈতিক মান ধরে রাখার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয় ফেসবুকের ফ্রেন্ডলিস্টে কোন মেয়ে ফেন্ড রাখা যাবে না। এমনকি মুহাররম হলেও।

শিবির তো সেই সংগঠন যার কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া কর্মীদের আদেশ দেয়া হয় ৩য় শ্রেণির উর্ধ্বে কোন ছাত্রী প্রাইভেট পড়ানো যাবে না।

শিবির তো সেই সংগঠন যার কর্মীদের জামায়াতে নামাজের গড় দৈনিক ৪ এর নিচে হলে জবাবদিহি নেয়া হয় ; ৪.৫ এর ওপরে রাখতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে পরামর্শ ও দোয়া করা হয়।

শিবির তো সেই সংগঠন যার কর্মীদের মাসে ২৫ দিনের উপরে কুরআন হাদিস অধ্যয়ন না করলে ভালোবাসার বকুনি দেয়া হয়।

শিবির তো সেই সংগঠন যার কর্মীদের দৈনিক কাজের হিসাব সংরক্ষণ করার জন্য প্রতিবেদন সংরক্ষণ করতে হয় ও মাস শেষে মজলিসে পেশ পর্যালোচনা করার মাধ্যমে পরবর্তি মাস আরো পরিকল্পিত সময় ব্যয় করতে পরামর্শ দেয়া হয়।

শিবিরের পোষাক, দাড়ি, টাখনুর উপর পোষাকের কথা বলবেন। হাজারো শিবির কর্মী আছে যাদের টাখনুর উপর প্যান্ট রাখার জন্য কোন চাপ দেয়া না হলেও, শর্ত জুড়ে দেয়া না হলেও স্বেচ্ছায় স্বজ্ঞানে প্যান্ট কেটে ছোট করে নিয়েছে।

দাড়ি রাখতে উৎসাহবোধ করে কোন প্রকার চাপ প্রয়োগ করা ছাড়াই। অমার্জিত, দৃষ্টিকটু পোষাকের জন্য কত যে ইহতেসাব দেয়া হয় তার ইয়ত্তা নেই৷

আপনি শিবির চিনেন না।

আপনি শিবির সম্পর্কে জানেন না।

শিবির এদেশের ছাত্রসমাজের জন্য আলোকবর্তিকা।

ইসলাম পালন বাধ্যবাধকতার বিষয় নয়। যাকে ইসলাম পালনে বাধ্য করা হয় সে চোখের আড়ালে সেটা পরিত্যাগ করবেই। পরিবর্তনটা স্বাভাবিক ও স্বপ্রণোদিত হওয়া চায়।

শিবির কী এটা লিখতে লিখতে হাত ক্লান্ত হয়ে যেতে পারে তবুও শিবিরের ভালো দিক যা একজন ছাত্রকে গড়ে তুলতে ভূমিকা রাখে তা লিখে শেষ করা যাবে না।

আপনি শিবিরের বিরোধিতা করুন সমস্যা নাই কিন্তু অন্তত ৭ দিন শিবিরকে সঙ্গ দিন। তারপর জাহেল মনে হলে বিরোধিতার ক্ষেত্রে যা ইচ্ছা গ্রহণ করুন।

কারণ শিবিরের দাওয়াতি কৌশল আপনি জানেন না। আপনার দাওয়াতে জোরে আমিন বলা নিয়ে আর বুকে হাত বাঁধা নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা ব্যয় করেন কিন্তু শিবির জামায়াতে নামাজ পড়া, খুশু খুজুর তালিম দেয় ফলে যখনই সে অপেক্ষাকৃত ছোট মাসয়ালা গুলো জানতে পারে তখনই বিনা বাক্যব্যয়ে গ্রহণ করে।

ইসলাম বিকল্প দিয়ে শরিয়ত জারি করেছে কিন্তু আপনি সব বন্ধ করে শরিয়তের সবক দেন।

চোখ বন্ধ করে মিডিয়ায় বক্তব্য দেয়া যায়, প্রমোশনের আশায় মিথ্যা মামলা সাজিয়ে কারাগারে পাঠানো যায় কিন্তু একজন শিবির কর্মীর মত আদর্শবান সন্তান গড়ে তোলা যায় না।

শিবিরের ছোয়ায় শিবির নিয়ন্ত্রিত স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল কলেজ থেকে ব্যাংক হাসপাতাল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এমনকি মন্ত্রণালয় পর্যন্ত শুধু শ্রেষ্ঠ হয় নি বরং এর কাছাকাছি র‌্যাংকিং এও কেউ আসতে পারেনি।

এটা ইসলাম, এটা ইসলামের শিক্ষা।

এটা শিবিরের আন্দোলন।

এটা শিবিরের ভিশন যার দুনিয়ার লক্ষ্য আলোকিত মানুষ , সমৃদ্ধ দেশ আর আখিরাতে আল্লাহর সন্তুষ্টির মাধ্যমে জান্নাত।

সংগৃহীত পোস্ট

বিষয়: বিবিধ

১০৬৭ বার পঠিত, ৩ টি মন্তব্য


 

পাঠকের মন্তব্য:

386819
০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ রাত ০৯:৫৫
আমি আল বদর বলছি লিখেছেন : শার্ট পেন্ট পরে নামাজের সামনের কাতারে দারানো ছেলে গুলাই শিবির


ভাল লাগলো ভাই ভালোবাসা ও দোয়া রেখে গেলাম
386821
০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ রাত ১১:৪৮
কুয়েত থেকে লিখেছেন : ভালো লাগলো লেখাটির জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ সচেতন অবঃ আল্লাহ্ ভীরু তাকওয়াদার ছেলেরাই শিবির করে
386826
১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ সকাল ১০:১১
টাংসু ফকীর লিখেছেন : অনেক ধন্যবাদ

মন্তব্য করতে লগইন করুন




Upload Image

Upload File