মনির্ং তাফসীর : সুরা ইউসুফ : তৃতীয়পর্ব স্বপ্ন বাস্তব হতে বহু বছর লাগতে পারে

লিখেছেন লিখেছেন তাইছির মাহমুদ ১৮ নভেম্বর, ২০১৮, ০২:৫১:১৭ দুপুর

কিছু ব্যস্ততায় গত ক'দিন মর্নিং তাফসীরে আসতে পারিনি। বিগত দুই পর্বের আলোচনায় আমরা ইউসুফ নবী যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তার ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করেছি। বলেছিলাম, মানুষ কেন স্বপ্ন দেখে? স্বপ্ন কি সত্য হয়? স্বপ্নের সাথে ইস্তখারার কোনো সম্পর্ক আছে কিনা। কিংবা ইস্তেখারার নামে ব্যবসা ও প্রতারণা। আগের আলোচনা মিস করে থাকলে এই ফেসবুকে টাইমলাইনে স্ক্রল করে নিচে গিয়ে দেখা যাবে।

আজ ছয় নাম্বার আয়াত থেকে আলোচনা শুরু করতে চাই। বিসমিল্লাহ হির রাহমানির রাহিম।

ছয়. ওয়া কাজা-লিকা ইয়াজতাবি-কা রাব্বুকা ওয়া ইউআল্লিমুকা মিন তা'ওয়িলিল আহাদীসি ওয়া ইউতিম্মু নিহমাতাহু আলাইকা ওয়া আলা আ-লি ইয়াকুবা কামা আতাম্মাহা আলা আবাওয়াইকা মিন ক্বাবলু ইব্রাহিমা ও ইসহাকা । ইন্না রাব্বাকা আলিমুন হাকিম।

এমনই করেই তোমার মালিক তোমাকে (নবুওতের জন্য) মনোনীত করবেন এবং তোমাকে স্বপ্নের ব্যাখ্যা (সহ অন্যান্য জ্ঞান) শিক্ষা দেবেন। এবং তাঁর নেয়ামত তোমার ওপর ও ইয়াকুবের সন্তানদের ওপর তেমনিভাইবে পূর্ণ করে দেবেন, যেমনি ভাবে এরআগেও তিনি তোমার পূর্বপুরুষ ইব্রাহিম ও ইসহাকের ওপর তা পূর্ন করে দিয়েছিলেন; নিশ্চয়ই তোমার মালিক সবকিছু জানেন ও প্রবল প্রজ্ঞাময় (জ্ঞানের অধিকারী)।

এই আয়াতগুলোর মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালা ইউসুফ (আঃ) কে সুসংবাদ দিয়েছিলেন যে, তাঁকে জ্ঞান-বিজ্ঞান শিক্ষা দেবেন। স্বপ্নের ব্যাখ্যা শেখাবেন এবং নবী বানাবেন। এখানে আরো একটি বিষয় উল্লেখ করতে চাই, ইউসুফ (আঃ) যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তা বাস্তবায়ন হয়েছিলো প্রায় চল্লিশ বছর পরে। অর্থাৎ চল্লিশ বছর তিনি নবী ও মিশরের শাসনকর্তা নিযুক্ত হয়েছিলেন। তাই এই আয়াত থেকে প্রতীয়মান হয়, আজ একটি স্বপ্ন দেখলে কালই এর ফল চলে আসবে না, এটা বহু বছর পরও বাস্তবায়ন হতে পারে। (ইবনে কাসীর, কুরতুবী)।

বিষয়: বিবিধ

৭৯৭ বার পঠিত, ০ টি মন্তব্য


 

পাঠকের মন্তব্য:

মন্তব্য করতে লগইন করুন




Upload Image

Upload File