নামাজে মন ফেরানো - ৮

লিখেছেন লিখেছেন শারিন সফি অদ্রিতা ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১০:৪৪:৪১ সকাল

আবু বকর(রাঃ) একবার রাসূল (সাঃ) কে অনুরোধ করলেন, "ইয়া আল্লাহর রসূল (সাঃ)! আমাকে এমন একটা দুয়া শিখিয়ে দেন, যেটা পড়ে আমি নামাজে আল্লাহকে ডাকতে পারবো।" তখন রসূল (সাঃ) তাকে শিখিয়ে দিলেন এই দুয়াটা - "আল্লাহুম্মা ইন্নি জলামতু নাফসি যুলমান কাছিরা, ওয়ালা ইয়াগ ফিরূজ যুনুবা ইল্লা আন্তা ফাগফিরলি মাগফিরাতম মিন ইনদিকা ওয়ার হামনি ইন্নাকা আনতাল গাফুরুর রাহিম |" (সহীহ বুখারী)

"হে আল্লাহ! আমি আমার নিজের আত্মার উপর অত্যাধিক অত্যাচার করেছি এবং তুমি ছাড়া পাপ ক্ষমা করার কেউ নেই । সুতরাং তুমি আমাকে ক্ষমা করে দাও। আমার প্রতি রহম কর । নিশ্চই তুমি অত্যন্ত ক্ষমাশীল দয়ালু।"

"যুলুম করা" মানে আমরা সাধারণত বুঝি যে কোনো অত্যাচারী ক্ষমতাসীন ব্যক্তি দুর্বল শ্রেণীর কারো সাথে অবিচার করছে। এরকম অত্যাচার করা সবাই ঘৃণার চোখে দেখে। কিন্তু ইন্টারেস্টিংলি আমরা নিজেরাই নিজেদের উপর সবচেয়ে বড় অত্যাচারটা করি যখন আমরা আমাদের আত্মাকে আল্লাহ থেকে বঞ্চিত করি। আত্মা আল্লাহর স্মরণ ছাড়া কখনোই শান্তি পাবে না. আল্লাহকে ভুলে গিয়ে নিজেদের আত্মাকে আমরা অস্থির আর রেস্টলেস রাখি। যতবার আমরা পাপ করি আমরা আমাদের নিজেদের উপর অত্যাচার করি। আল্লাহর আদেশ অমান্য করার মাধ্যমে আত্মার উপর যুলুম করি! নামাজের এই পর্যায়ে এসে আমরা নিজেদেরকে এই ভুল স্বীকার করে নিচ্ছি এবং জালিমে পরিণত হওয়া থেকে আল্লাহর কাছে আশ্রয় চাচ্ছি।

আমরা যখন জালিম হয়ে যাই, তখন আল্লাহ ছাড়া আমাদেরকে রক্ষা করার আর কেউ নেই! তাই আল্লাহর কাছেই "মাগফিরাহ" এবং "রাহমাহ" চাই! "মাগফিরাহ" এর তাৎপর্য হলো, যত বড় গুনাহ-ই বান্দা করুক না কেন, আল্লাহ মাফ করতে সক্ষম! আর "ওয়ারহামনি" এর তাৎপর্য হলো, যতবারই বান্দা গুনাহ করুক না কেন, আল্লাহ মাফ করতে সক্ষম! সুবহানাল্লাহ! একই ভুল কেউ দুইবার করছে দেখলেই আমাদের মানুষদের মাথা খারাপ হয়ে যায়, আমরা ধৈর্য হারিয়ে ফেলি! ছোট ছোট ভুল আমরা কোনোমতে মাফ করতে পারলেও কেউ বড় রকমের কোনো অন্যায় করলে আমরা কিছুতেই মাফ করতে পারিনা। কিন্তু আল্লাহ পারেন। যেমনঃ স্বামী যদি স্ত্রীর সাথে ধোঁকাবাজি করে পরকীয়া করে সেটাকে অনেকের কাছেই ক্ষমার অযোগ্য। কিন্তু সেই ব্যক্তিও যদি খাঁটিভাবে তাওবাহ করে আল্লাহর কাছে ফিরে আসেন, আল্লাহ তাকে ফেরত নিয়ে নিবেন। "মাগফিরাহ দিবেন". একবার ক্ষমা করে দিবার পর যদি সেই স্বামী আবার পরকীয়া করে, তাহলে সবাই মানবে যে, তার সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া উচিত! অথচ বার বার এরকম পাপ করেও আল্লাহর কাছে বার বার ফিরে আসলে আল্লাহ প্রতিবার ক্ষমা করে যাবেন - এভাবে মৃত্যুর আগে পর্যন্ত খাঁটি তাওবা আল্লাহ কবুল করে যাবেন। আল্লাহ রাহমানুর রাহিম! তিনি বড় ধরণের গুনাহ ক্ষমা করেন এবং বার বার ক্ষমা করেন! জাস্ট কিপ কামিং ব্যাক টু হিম!

বিষয়: বিবিধ

৯১ বার পঠিত, ০ টি মন্তব্য


 

পাঠকের মন্তব্য:

মন্তব্য করতে লগইন করুন




Upload Image

Upload File