আমাদের ঈমানে দৃঢ়তার অভাব;

লিখেছেন লিখেছেন হারেছ উদ্দিন ০১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ০৩:১৮:১৮ দুপুর

আল্লাহর পথে চলতে আমরা অব্যস্ত নই এবং স্বচেষ্ট হইনা;

আল্লাহ যা করার জন্য বলেছেন এবং যা থেকে বিরত থাকার জন্য বলেছেন তা মেনে চলাই হলো গোলামী বা (ইবাদত)। আমরা মুখে আল্লাহকে মানি এবং আল্লাহর ক্ষমতা সম্পর্কেও জানি তিনি শর্বশক্তিমান, সব কিছু করেন, সবকিছু দেওয়ার মালিক এবং দেন। কিন্তু কেনজানি আমরা এই বিশ্বাসের উপর অটল থাকতে পারিনা।

আমরা নিজেরাই সব কিছু করে নিতে পারব এমন চেতনা যেন মনে জাগ্রত হয়ে যায় অবচেতনে। তাই ভুলে যাই আল্লাহ সবকিছু দেওয়ার মালিক, আল্লাহর ইচ্ছার বিরোদ্ধে কিছু হয় না কেউকিছু করতে পারে না, এই শ্বাশত বাক্যগুলি। আল্লাহ আমার জন্য এইদুনিয়ায় যতটুকু শান্তি নির্ধারণ করেছেন এরবেশী বা কম আমি পাবনা, সমস্ত দুনিয়ার মানুষর সাহায্য নিয়েও তা সম্ভব নয়। এই বিশ্বাসের কথা গুলি আমরা ভুলে যাই, তাই আল্লাহর পথের কাজকে বাদ দিয়ে, তাঁর সাহায্যের অপেক্ষা না করে নিজেরাই নিজেরদের শান্তি খুঁজি। ভুলে যাই আমাদের কে দুনিয়ায় পাঠানোর মূল উদ্দেশ্য। আমরা খুঁড়া যুক্তি উপস্থাপন করে আল্লাহর পথের কাজকে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করি।

এই গুলি বিশ্বাসের (ঈমানের) কোন পর্যায়ে পরে তা কিন্তু ভাবার অবকাশ নাই প্রয়োজনও মনে করিনা, কিন্তু ভাবা দরকার।

আল্লাহ বলেছেন মানুষ সৃষ্টির শ্রেষ্ট সৃষ্টি, তাদের আমার প্রতিনিধী হিসাবে জমিনে প্রেরণ করেছি, তারা আমার প্রতিনিধীত্ব করবে। আমার আইনে মানুষের জীবন চলার পথকে সহজ করে দেবে, আল্লাহর পাঠানো আইন কায়েম করে। মানুষকে সৎ কাজ করার আদেশ করবে, সৎ কাজ করার পরিবেশ সৃষ্টি করবে তাদের সর্বাত্বক প্রচেষ্টার মাধ্যমে। অসৎ কাজ করা থেকে বিরত রাখবে, আল্লাহর আইন কায়েম করে শাস্তির ব্যবস্থা করবে, যাতে মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পারে,সুষ্টু সামাজিক পরিবেশ বজায় থাকে, সার্বিক অন্যায় অত্যাচার থেকে নিরিহ মানুষ নির্ভয়ে আল্লাহর হুকুম সর্বক্ষেত্রে পালন করতে পারে।

আজ আমরা সে দায়িত্ব ভুলে গেছি, আখেরাতের অনন্তকালের জীবনকে ভুলে, ক্ষনস্থায়ী জীবনের মোহে পরে সবচেয়ে বড় দায়িত্ব পালনে অবহেলা করছি। আল্লাহ বলেছেন তারাই সবচেয়ে বুদ্ধিমান যারা দুনিয়ার জীবনের চেয়ে আখেরাতের জীবনকে প্রাধান্য দেয়।

আল্লাহ আমাদের পূর্ণ হেদায়াত দান করুন

বিষয়: বিবিধ

৭১ বার পঠিত, ০ টি মন্তব্য


 

পাঠকের মন্তব্য:

মন্তব্য করতে লগইন করুন




Upload Image

Upload File